কেউ কেউ একা - সমরেশ মজুমদার

  • Hello Guest ,

    *** রেজিস্ট্রেশন করার পর "Confirmation Email" না পেলে "Spam" ফোল্ডার চেক করুন। ***

  • বাংলাপিডিএফ এ নতুন করে রেজিস্ট্রেশন চালু হয়েছে। তবে এই ওয়েবসাইটের কোন মডারেটর বা আপলোডার যদি আপনার পরিচিত হয়, তাহলেই কেবল রেজিস্ট্রেশন করতে পারবেন। তাদের কাছ থেকে ইনভাইটেশন লিঙ্ক নিয়ে সেটা ব্যবহার করে রেজিস্ট্রেশন করা যাবে।

Antar Keys

New Member
Dec 18, 2014
467
9,134
30
Dhaka
www.facebook.com
Credits
2,838
কেউ নেই একা
সমরেশ মজুমদার
প্রকাশকঃ
দে’জ পাবলিশিং
বাংলাদেশ সংস্করন (আপলোডকৃত)
প্রকাশনায়ঃ
বনফুল প্রকাশনী
প্রথম বাংলাদেশ সংস্করণঃ জুন ১, ১৯৯৪






ভাবনাঃ
কাহিনী সংক্ষেপ তো ফ্ল্যাপের ছবিতেই পড়েছেন, সুতরাং এখানে সেটি বলে আর জায়গা এবং সময় নষ্ট করছি না, বরং বইটি নিয়ে নিজের ভাবনা প্রকাশ করার প্রয়াস পাচ্ছি।


নিজেদের সামাজিক ইমেজ রক্ষার্থে আমরা তো আমাদের জীবনে হাজারও পর্দার আড়াল টেনে রাখি। সেই আড়ালে থাকে কত হাসি-কান্না, দুঃখ-বেদনা, মান-অভিমান, অপমান- আঘাত, অভিযোগ-অনুযোগ। আবার পর্দার বাইরে বেড়িয়ে এসে মুখে সেই মেকি হাসি ফুটিয়ে পথ চলা।

তেমনি এক মানুষ অরিত্র চ্যাটার্জি, পেশাগত জীবনে একজন উচ্চপদস্থ অফিসার। কিন্তু পারিবারিক জীবনে চরম অসুখী। দূর অতীতে নিজের ক্ষনিকের এক ভুলের মাশুল দিয়ে যেতে হয় প্রতিনিয়ত নিজের স্ত্রীর কাছে উঠতে- বসতে গঞ্জনা, আর একমাত্র সন্তানের কাছ থেকে অবহেলার আঘাত সয়ে। এ কারনে অফিস ছুটির পর তার কাছে নিজ গৃহের চেয়ে ক্লাব, বার বা এরুপ কোন স্থানই নির্ভরতার জায়গা।

এই অরিত্রের জীবনই বদলে যায় এক রাতের এক টেলিফোন কলে। যে ফোনকলটি মুলত নাম বিভ্রাটের কারনেই তার কাছে আসে, কিন্তু এর after effect হয় অনেক গভীরড়। অরিত্র নিজের অজান্তেই জড়িয়ে পড়ে আরেক পরিবারের সাথে, তাদের সুখ দুঃখের ভাগীদার হয়ে।

প্রশ্ন উঠতেই পারে, কেন অরিত্র ভাগীদার হতে গেল এই পরিবারের সবকিছুর। আত্মকেন্দ্রিকতা যেখানে এই সমাজের মুলকথা, স্বার্থই যেখানে সব কর্মের চাবিকাঠি, সেখানে এরুপ আপাতদৃষ্টিতে নিঃস্বার্থ কার্যাবলী কি অস্বাভাবিক নয়? অরিত্রের নিজের মনেও কি এই প্রশ্ন উদয় হয় নি? একটূ গভীর ভাবে ভাবলেই দেখা যায়, এই সম্পর্ক পুরোপুরি নিঃস্বার্থ নয়। নিজ সন্তানের কাছ থেকে অবহেলার যে যন্ত্রনা, নিজ পরিবারে একঘরে হয়ে থাকার যে মানসিক চাপ, আ লাঘবের জন্যেই যেন অরিত্র সেই অচেনা পরিবারটির সাথে জড়িয়ে যায়। কিন্তু, শেষ পর্যন্ত তারাও কি অরিত্রকে আপন করে নিতে পারে?


অসংগতিঃ
বইটি বাংলাদেশে প্রকাশিত হয়েছে ১৯৯৪ সালে, সুতরাং ধরে নেওয়া যায় পশিমবঙ্গে বইটির প্রকাশকাল হবে ৮০র দশক। এখন হতে পারে ওই সময় এই আবিষ্কারটি হয় নি, কিন্তু এই বইতে দেখা যায় স্বামী এবং স্ত্রীর রক্তের গ্রুপ একই, এবং তাদের সন্তানের রক্তের গ্রুপ ভিন্ন। এখন আমরা সবাই জানি একই রক্তের গ্রুপে বিয়ে হলে সন্তানের ব্লাড ক্যান্সারের সম্ভাবনা অনেক বেড়ে যায়। সমড়েশ মজুমদারের মত একজন সচেতন লেখকের কাছ থেকে এই ভুলটি আশা করি নি।



আমার ব্যাক্তিগত রেটিং ৪.৭/৫


চমতকার এই বইটি নিজের ব্যাক্তিগত সংগ্রহ থেকে আপলোড করেছেন প্রিয়
Please, Log in or Register to view URLs content!
ভাই।


বইটি পড়তে চাইলে ক্লিক করুন
Please, Log in or Register to view URLs content!


প্রকৃত আপলোডারকে সম্মান করতে শিখি, পিডিএফ পড়ে ভালো লাগলে যথাসম্ভব বইগুলোর হার্ডকপিও সংগ্রহে রাখার চেষ্টা করি। আর এই বৈরি সময়ে সবাই নিজ নিজ অবস্থান থেকে দায়িত্বশীলতার পরিচয় দেই। নিজেরা ভালো থাকি, সবাইকে নিয়ে ভালো থাকার চেষ্টা করি।
 

ask2016

New Member
Feb 24, 2016
102
1,298
Credits
10,636
আপনার রিভিউয়ের পরিবেশনা খুব সুন্দর।অসঙ্গতি তুলে ধরার জন্য ধন্যবাদ। তবে আরেকটু বোরো হলে ভালো লাগতো।
কষ্ট করে রিভিউ লেখার জন্য অনেক ধন্যবাদ। আশাকরি রিভিউর মাদ্ধমে অনেক পাঠক বইটি পড়তে উৎসাহী হবে।
 
  • Love
Reactions: Antar Keys

sanjidajoly

New Member
Feb 7, 2019
194
3,220
Credits
2,729
অসাধারন একটি রিভিউ। একেবারে বৈজ্ঞানিক ত্রুটিগুলোও খুজে বের করা হয়েছে। রিভিউ এমন না হলে তো বই পড়ার আগ্রহ বাড়ে না। উপন্যাসে যেন আমাদের জীবনের প্রতিধ্বনিই শুনতে পাই।​
 
  • Love
Reactions: Antar Keys

dibyendu roy

New Member
Aug 11, 2015
59
604
39
india
Credits
4,233
I wonder why I hadn’t come across this one in so many years. I have read the best of Samaresh majundar, but missed this one. All of his book including this have a very vast milieu as their setting. There are a plethora of characters introduced gradually to the readers, linking them to each other in a complex web of a plot. I’d say this book is comparatively less critical then other book of writer.This review atract me to read the book
 
  • Love
Reactions: Antar Keys

Takwani

Active Dreamer
Donor
Premium Member
Aug 13, 2015
125
3,154
Credits
8,018
আমি বিভিন্ন লেখকদের নামে আলাদা ফোল্ডার খুলে যখন যেই লেখকের বই পাই নিয়ে জমা করি নির্দিষ্ট নামের ফোল্ডারে। আপাতত এই কাজই আনন্দ আর কৌতূহলে করি। পড়া হয় না কোনওটা। তাই এই কথা বলব না যে বইটি পড়ার জন্য নিতে চাই। এখন না হোক, অদূর ভবিষ্যতে আমার বা পরিবারের অন্য কারও আমার এই সংগ্রহ থেকে উপকৃত হওয়া যেন শতভাগ গ্যারান্টিযুক্ত। তাই কিছুই মিস করতে চাই না।
আপনার জন্য অনেক শুভ কামনা রইল।
 

Antar Keys

New Member
Dec 18, 2014
467
9,134
30
Dhaka
www.facebook.com
Credits
2,838
Please, Log in or Register to view quote content!
আরে হাত মিলান, ক্যাটাগরি করে রাখা আমারও অভ্যাস। বইয়ের ক্ষেত্রে আমি লেখক ফোল্ডার, এবং তার পর "কত সালে ডাউনলোডকৃত" সেই সাব- ফোল্ডারে রাখি। আর ম্যাগাজিনের ক্ষেত্রে সাল ভিত্তিক ফোল্ডার।

তবে পড়া হয় না শুনে বেশ খারাপ লাগল। আমার মনে হয় আপনি মনকে শক্ত করে পড়তে লেগে যান, একবার ভালো লেগে গেলে দেখবেন পড়া ছাড়া থাকতেই পারবেন না। তাছাড়া এখন তো স্মার্ট ফোন, কিন্ডেল সহ পিডিএফ সহজে পড়ার নানা ডিভাইস এবং গ্যাজেটস রয়েছে, সুতরাং শুরু করে দিন পড়া। Happy Reading.
 

কমেন্ট করার আগে নিম্মোক্ত বিষয়গুলো দেখে নিনঃ

  • বাংলিশ কমেন্ট করা যাবে না।
  • ক্রেডিট নিয়ে কোন কমেন্ট করা যাবে না।
  • মিডিয়াফায়ার কাজ না করলে VPN অথবা Tor ব্যাবহার করুন।
  • একই ধরনের রিপ্লাই বার বার করলে ব্যান হবার সম্ভাবনা আছে।
  • লিঙ্ক কাজ না করলে, কমেন্ট না করে আপলোডারকে ম্যাসেজ দিন।