প্রচেত গুপ্ত- শহীদ ভুপতি সেন কলোনি

  • Hello Guest ,

    *** রেজিস্ট্রেশন করার পর "Confirmation Email" না পেলে "Spam" ফোল্ডার চেক করুন। ***

  • বাংলাপিডিএফ এ নতুন করে রেজিস্ট্রেশন চালু হয়েছে। তবে এই ওয়েবসাইটের কোন মডারেটর বা আপলোডার যদি আপনার পরিচিত হয়, তাহলেই কেবল রেজিস্ট্রেশন করতে পারবেন। তাদের কাছ থেকে ইনভাইটেশন লিঙ্ক নিয়ে সেটা ব্যবহার করে রেজিস্ট্রেশন করা যাবে।
  • রেগুলার সেকশনে কেউ পূজাবার্ষিকী আর ঈদ সংখ্যা ৬ মাস হবার আগে শেয়ার করবেন না। এই বিষয়ে আমাদের নীতিমালা রয়েছে এখানেঃ https://banglapdf.net/threads/5127/"

Antar Keys

Member
Dec 18, 2014
584
9,772
31
Dhaka
www.facebook.com
Credits
3,091
শহীদ ভুপতি সেন কলোনি

লেখকঃ প্রচেত গুপ্ত

প্রথম প্রকাশঃ ডিসেম্বর ২০১৪

প্রকাশনীঃ আনন্দ পাবলিশার্স প্রাইভেট লিমিটেড

প্রচ্ছদঃ অনুল্লেখিত





কাহিনী সংক্ষেপঃ
৪৭ এর দেশভাগের পর দুই বাংলা থেকেই বহু মানুষ সীমানা পেরিয়ে অন্য দিকে চলে যায়। যারা এখানে থাকতেই ওপারে নিজেদের ব্যাবস্থা করে নিতে পেরেছিল তাদের তেমন সমস্যা হয় নি, কিন্তু যারা ধর্ম ও রাজনীতির যাতাকলে পড়ে হঠাত করে ওপারে যেয়ে হাজির হয় তারা যেন পড়ে যায় অকুল পাথারে। সামান্য কিছু খাবার, মাথা গোঁজার একটু ঠাই এর খোজে ঘুরে বেড়ায় এ জায়গা থেকে ওই জায়গা। এমন অবস্থায় কলকাতার মুল শহরের বাইরে, শহরতলীতে বিভিন্ন জমিকে স্বল্প মুল্যে বিক্রয় করে দেয় সুযোগ সন্ধানীরা। দেশত্যাগীরা কিনে নেয় সেসব জমি, আর এভাবেই গড়ে ওঠে “কলোনি” নামধারী বহু লোকালয়, আলাদা শহর, আলাদা সমাজ।

তেমনই এক লোকালয় হল কলকাতার পুর্বদিকে শহীদ ভুপতি সেন কলোনি, যে জমির মুল মালিক ছিল বর্ধমানের এক রাজপরিবার। এক সময় যোগাযোগ, পানীয় জল সহ সবকিছুরই সমস্যাতে থাকা এই লোকালয় অনেক ত্যাগ-তিতীক্ষা, আন্দোলন, সংগ্রাম, এমনকি মৃত্যুর মধ্যে দিয়ে আজকের অবস্থানে এসে পৌঁছেছে এই কলোনি। এখন এটি সহ আশেপাশের সাত-আটটি অঞ্চল নিয়ে গঠিত হয়েছে “পুর্ব দিগন্ত মিউনিসিপ্যালিটি”।

নানা ধরনের লোকের বাস এই কলোনিতে। তার মাঝে আছেন সাবেক বিপ্লবী বামাপদ রায়। বিপ্লব ব্যর্থ, সেই সময়ের কমরেডদের অনেকেই ভোল পালটে আজ সমাজের উঁচু স্তরের বাসিন্দা, আর বামাপদ সেই বিপ্লবকালের বিভিন্ন অভিজ্ঞতা শুনিয়ে মানুষের সহানুভুতি আদায় করে বেড়ান, সেই সাথে নিজের পরিচিতি ব্যাবহার করে নানাজনের উপকার করে দেন। কিন্তু এর বিনিময়ে তিনি নিজের জন্যে এক টাকাও নেন না, তাহলে কি তার স্বার্থ?

নির্মল চক্রবর্তী, মিউনিসিপ্যালিটির চেয়ারম্যান, একজন সাবেক কলেজের অধ্যাপক, নীতিবান রাজনীতিক, নীতির ব্যাপ্রে আপোষহীন থাকতে চান, কিন্তু আশেপাশের লোভী স্বার্থপর মানুষের ভীড়ে কি তিনি আদর্শ ধরে রাখতে পারবেন?

কৃষ্ণকলি চক্রবর্তী, নির্মলের একমাত্র কন্যা। অসাধারন মেধাবী ছাত্রী, শিল্পমনস্ক, ইন্টেরিওর ডিজাইনে দক্ষ, তুখোড় যুক্তিবাদী, একজন ভালো মনের মেয়ে। আর প্রিয়ম মালাকার, মালদা থেকে শিক্ষা ও জীবিকার সন্ধানে কলকাতায় আসা যুবক। গতানুগতিক চিন্তাধারা থেকে বেড়িয়ে ইচ্ছে স্বাধীন ভাবে থাকার, নিজের গল্পে নিজে ফিল্ম পরিচালনা করার। আকস্মিকভাবেই কৃষ্ণকলির সাথে পরিচয়, তারপর প্রেম, তাদের ভালোবাসা দিয়ে কি তারা জয় করতে পারবে গতানুগতিকের বাইরে গেলে যে সামাজিক বাধার মুখোমুখি হতে হয় তা মোকাবেলা করতে?

দেবকুমারবাবু, একজন আপাদমস্তক অসৎ ব্যাবসায়ী, নিজের লাভের জন্যে যে কোন অনৈতিক কাজ করতে যার কোন বাধা নেই। আর তার সেক্রেটারি গৌর দাস। তারা কি পারবে তাদের ব্যাবসায়ীক উদ্দেশ্য হাসিল করতে?

সবার স্বার্থ হঠাত করে একটি বিন্দুতে মিলে যায়, যে বিন্দু হল শহীদ ভুপতি সেন কলোনি, তবে কি সবার স্বার্থই হাসিল হবে? ভুপতি সেন কলোনি কি তবে নিজের পরিচয়, চরিত্র হারিয়ে ফেলবে?

এমন অনেক টুকরো টুকরো চরিত্র, তাদের জীবনের ঘটনা, তাদের মন-মানসিকতার বিশ্লেষন নিয়েই এ উপন্যাস। এ উপন্যাসের মুল চরিত্র তবে কে? উত্তর খুব সহজ। মুল চরিত্র হল একটি লোকালয়, যার নাম “শহীদ ভুপতি সেন কলোনি”।


ব্যাক্তিগত অভিমতঃ
প্রচেত গুপ্ত অত্যন্ত গুনী একজন লেখক। কাল্পনিক কাহিনীর মধ্যে দিয়ে তিনি দেখিয়ে দিয়েছেন সমাজের বিভিন্ন স্তরে ঘটে যাওয়া সব ন্যায়-অন্যায়, ঘৃনা, প্রতারনার, প্রেম সবকিছুর চিত্র। বইটি পশ্চিম বঙ্গের প্রেক্ষাপটে লিখিত হলেও বাংলাদেশের সাথেও যেন এর মিল পাওয়া যায়।

লেখকের একটি বৈশিষ্ট হল, একটি ঘটনা থেকে আরেক ঘটনার ফ্ল্যাশব্যাক, তার থেকে আরেকটি। এভাবে কখন যেন একটি ছোট ঘটনা থেকে তিনি অনেক বড় ঘটনা দেখিয়ে দেন। কিন্তু পড়তে পড়তে মোটেও অসংগতি লাগে না, বরং যথেষ্ট উপভোগ্য হয়ে ওঠে।

আনন্দ পাবলিশার্সের সামারি লেখকেরা লিখেছেন- “…তারপরে কেউ মাথা উঁচু করে থাকে। কেউ মানুষকে ভালোবাসে।“ আমি বলব, সবকিছু ছাপিয়ে তবুও মানুষ বেঁচে থাকে, স্বপ্ন দেখে, নিজের আত্মসম্মান টিকিয়ে রাখে, ব্যার্থতায় হতাশ না হয়ে আবার নতুন করে জেগে ওঠে। এই আমাদের মধ্যবিত্ত সমাজ।



প্রচ্ছদঃ
অত্যন্ত চমতকার, কিন্তু দুঃখের বিষয় প্রচ্ছদ শিল্পীর নাম উল্লেখ নেই বইতে।



রেটিংঃ
আমার ব্যাক্তিগত রেটিং- কাহিনী- ৪.৮/৫
লেখনী- ৪.৭/৫
চরিত্র চিত্রন- ৪.৯/৫




চমতকার এই বইটি আপলোড করেছেন প্রিয়
Please, Log in or Register to view URLs content!
দাদা।


বইটি পড়তে চাইলে ক্লিক করুন
Please, Log in or Register to view URLs content!


পরিশেষে সবাইকে মুজিববর্ষের শুভেচ্ছা। আর বর্তমান বৈশ্বিক মহামারীর প্রেক্ষিতে আমরা নিজেরা ঠিক থাকি, নিজের দায়িত্ববোধের পরিচয় দেই, সবাইকে নিয়ে ভালো থাকার চেষ্টা করি। ধন্যবাদ।
 

nile555

New Member
Nov 11, 2014
311
2,914
Credits
19,183
অনেক অনেক ধন্যবাদ আপনাকে সংক্ষেপে বইটার এমন চমৎকার রিভিউ দেয়ার জন্য। প্রচেত গুপ্তের কোন লেখা পড়েছি বলে মনে পড়ে না । পড়ার তালিকায় রাখলাম, সময় করে বইটা হাতে পেলে পড়ে নিব ।
 

ask2016

New Member
Feb 24, 2016
102
1,321
Credits
12,807
চমৎকার একটা রিভিউ। রিভিউ পরে ভালো লাগলো। গল্পটা পড়ার আগ্রহ বাড়িয়ে দিলো।

আপনার চমৎকার রিভিউয়ের জন্য অনেক ধন্যবাদ। আশা করি সামনে এরকম আরো অনেক রিভিউ পাবো।
 

sanjidajoly

New Member
Feb 7, 2019
265
3,476
Credits
276
খুবই গুছালো একটি রিভিউ। উপস্থাপনাও খুব চমৎকার। একটা ভালো রিভিউ একটা বইয়ের সঠিক চিত্র তুলে ধরে। রিভিউ পড়ে অনেক বই পড়ার ইচ্ছা তৈরি হয়েছে।
 

Antar Keys

Member
Dec 18, 2014
584
9,772
31
Dhaka
www.facebook.com
Credits
3,091

SmjK0

New Member
Sep 29, 2021
180
476
Sylhet
Credits
3,070
খুব সুন্দর করে এবং চমৎকার ভাবে বিস্তারিত ভাবে রিভিউ আপলোড দিয়েছেন আপনি ভাই । বইটি পড়তে হয়তো রিভিউ এর মতো ভালো লাগবে আশা করছি
 

smnsbd1971

New Member
Jan 20, 2019
210
1,304
Credits
8,914
রিভিউটা বেশ ভাল হয়েছে। রিভিউ পড়ে মনে হচ্ছে যে, বইটা খুব শীঘ্রই পড়া দরকার। যাই হোক, বইটার উপর এত সুন্দর করে রিভিউ লেখার জন্য আপনাকে জানাচ্ছি অসংখ্য ধন্যবাদ।
 

কমেন্ট করার আগে নিম্মোক্ত বিষয়গুলো দেখে নিনঃ

  • বাংলিশ কমেন্ট করা যাবে না।
  • ক্রেডিট নিয়ে কোন কমেন্ট করা যাবে না।
  • মিডিয়াফায়ার কাজ না করলে VPN অথবা Tor ব্যাবহার করুন।
  • একই ধরনের রিপ্লাই বার বার করলে ব্যান হবার সম্ভাবনা আছে।
  • লিঙ্ক কাজ না করলে, কমেন্ট না করে আপলোডারকে ম্যাসেজ দিন।