রিলিজিয়াস মাইন্ডসেট বিশ্বাসের ঢেঁকি গেলা - সজল রোশান

  • Hello Guest ,

    *** রেজিস্ট্রেশন করার পর "Confirmation Email" না পেলে "Spam" ফোল্ডার চেক করুন। ***

  • বাংলাপিডিএফ এ নতুন করে রেজিস্ট্রেশন চালু হয়েছে। তবে এই ওয়েবসাইটের কোন মডারেটর বা আপলোডার যদি আপনার পরিচিত হয়, তাহলেই কেবল রেজিস্ট্রেশন করতে পারবেন। তাদের কাছ থেকে ইনভাইটেশন লিঙ্ক নিয়ে সেটা ব্যবহার করে রেজিস্ট্রেশন করা যাবে।
  • আমাদের আন্ডারগ্রাউন্ডে (eboidownload) কিছু কাজ চলছে, তাই ২/৩দিন বন্ধ থাকবে। সাময়িক অসুবিধার জন্য দুঃখিত!

rickyrk

New Member
Sep 15, 2013
66
2,030
Chittagong
Credits
6,042

এই বই নিয়ে রিভিউ লিখবনা ভেবেছিলাম, বইটা ইসলাম ধর্ম নিয়ে লিখা আর বর্তমানে ধর্ম নিয়ে সাধারণ মানুষ হিসেবে কিছু বলা অনেকটাই রিস্কি কারন ভিন্নমত পোষন করলে আপনি নাস্তিক, মুরতাদ, মুনাফেক বিভিন্ন ট্যাগ লাগিয়ে দিয়ে আপনার রক্ত হালাল ঘোষনা করে দিবে।

➡বইটি লিখেছেন ঃ সজল রোশান, পুরো নাম সৈয়দ আমিনুল ইসলাম সজল
পেশাঃ প্রফেশনাল স্কিল ডেভেলপমেন্ট ট্রেইনার এবং ডিজিটাল মার্কেটিং কনসালটেন্ট।
শিক্ষাঃ প্রথম জীবনে আলিয়া মাদ্রাসা থেকে পড়ে ঢাকা ইউনিভার্সিটিতে টেরোরিজমের উপর গবেষনায় যুক্ত ছিলেন, সেটা শেষ না করেই পাড়ি জমান আমেরিকায়।

➡⚠বইটি কারা পড়বেন এবং কারা পড়বেন নাঃ

যারা ধর্ম সম্পর্কে জানার আগ্রহ রাখেন, ওপেন টু নিউ ইনফো, যারা চিন্তা করতে চান, ক্রিটিক্যাল থিনকিং করতে ইচ্ছুক তাদের জন্য এই বই সাজেস্ট করব।

⚠⛔যারা ধর্মীয় গুরুর অন্ধভক্ত এবং বৃত্তের বাহিরে চিন্তা করতে চাননা তারা এই বই না পড়লেই ভালো।

➡বইটি কেন পড়বেন?
কখনো কি প্রচলিত ধার্মিক বলে যাদের আমরা বুঝি তাদের বিভিন্ন কার্যকলাপ, আচার আচরন দেখে মনে প্রশ্ন এসেছে কেন এরা এমন করে? কেন এই উগ্র আচরন? কেন সহনশীলতা নেই?

আমরা যেই মহানবী (সাঃ) কে অনুসরন করি তাঁর জীবনী যতটুকু জানি তাতে আমরা যানি তিঁনি খুবই দয়ালু, মিস্টভাষী, সদালাপী ও ক্ষমাশীল ব্যাক্তি ছিলেন। তবে কেন তাঁর অনুকরনকারীরা এত অসহিষ্ণু!!

ধর্মের নামে অদ্ভুত আর উদ্ভট কিছু কার্যকলাপ আমাদের ফলো করতে বলা হয়। যুক্তি দিলে বলা হয় যুক্তি শয়তানের অস্ত্র!
যুক্তি দেয়া যাবে না। অন্ধ বিশ্বাস করতে হবে!
ইসলাম ধর্মে কি সব কিছুই অন্ধ বিশ্বাস করতে হবে?
ইসলাম ধর্মে আমাদের কি কি বিনা শর্তে বিশ্বাস করতে হবে?

আল্লাহ অন্ধ অনুকরন ও অনুসরন করতে আমাদের নিষেধ করেছেন, আমাদের চিন্তা করতে বলেছেন। কিন্তু ধর্মগুরুরা আমাদের অন্ধ অনুকরন করতে বলে। কেন এই দ্বীমুখি বার্তা?
কোর'আন মানব নাকি ধর্মগুরুদের মানব?
ধর্মগুরুদের না মানলে ইসলাম কিভাবে শিখব?
কোর'আন বোঝা কি খুব কঠিন?
ইসলাম এবং এর হুকুম গুলো কতটুকু লজিক্যাল?
কোনটা ইসলামী রীতিনীতি আর কোনটা আরবদের রীতিনীতি?
কোর'আন কিভাবে কেয়ামতের আগ পর্যন্ত মুসলমানদের জন্য পথ চলার পাথেয়?
ইসলামী লেবাস কি?
ইসলাম নিয়ে এত বিভক্তি কেন? এর উৎপত্তি কোথায়?
বেহেস্তের চাবি কি শুধুই নামাজ?
কোর'আনের আইন কোনটা আর ফিকহ কোনটা?

ইত্যাদি ইত্যাদি প্রশ্ন যদি মনে জাগে এবং এর সদুত্তর খোঁজার ইচ্ছে থাকলে এই বইটা সহায়ক হবে। সব উত্তর এই বইয়ে পাবেন না তবে কিভাবে উত্তর খুঁজতে হবে সেই উত্তর পাবেন।

➡আরো কিছু কথা ও আমার ব্যাক্তিগত মুল্যায়নঃ

আমরা আসলে কোনটা ইসলাম, কোনটা কোর'আনের কথা, কোনটা হাদীসের কথা, কোনটা ফিকহের কথা সেটাই ভালোভাবে বুঝি না। আর কি যে বুঝি না সেটাই জানি না। জানিনা বুঝিনা দেখেই ধর্মগুরুদের পিছে ছুটি অন্ধভাবে!!
ধর্মগুরুদের দ্বীচারিতা, খেয়াল খুশি বা দরবারের নির্দেশে করা ফিকহি মাসায়েল হয়ে গেছে আমাদের জন্য বোঝা। তারা ইসলাম কায়েম করতে চায় একেবারে ১৪০০ বছর আগের মত!!
দুনিয়া ১৪০০ বছর আগে পড়ে নেই জনাব। বিজ্ঞানের অমুক আবিষ্কার কোর'আনে ১৪০০ বছর আগেই বলা ছিল এই রকম পোস্ট দেখে শেয়ার দিয়ে তৃপ্তির ঢেঁকুর তুলি কিন্তু এটা ভাবিনা ১৪০০ বছর আগেই আমাদের এত এডভান্স কিতাব দেয়া হয়েছিল অতীতে পড়ে থাকার জন্য না। এটা ভাবিনা কেন আমাদের দেয়া এডভান্স তথ্য গুলো অন্যরা আবিষ্কার করে আর আমরা কোর'আনের সাথে পরে মিলিয়ে তৃপ্তির ঢেঁকুর তুলি!! এটা তো আমাদেরই আবিষ্কার করার কথা!!

সম্প্রতি হয়ে যাওয়া মানবিক বিয়ের কথাই দেখি, ১৪০০ বছর আগে এখনকার মত কাগজ সহজলভ্য হলে রাসুল(সাঃ) বিয়ে রেজিস্ট্রি করার সিস্টেমই আমাদের দিতেন। তখন কাগজ সহজলভ্য ছিল না, লিখার ইন্সট্রুমেন্ট এক্সপেন্সিভ ছিল তাই তখন মানুষের মুখের কথাই যথেস্ট হত। ২ জন সাক্ষী দিলে এনাফ ছিল।
বর্তমান যুগ বদলে গেছে, এখন আপনি কি জানেন সেটা ম্যাটার করেনা, কাগজে কি প্রমান করতে পারবেন সেটা ম্যাটার করে।
পাশের দেশ ইন্ডিয়াতে এক লোক খুব সম্ভব ১৫ বছরের অধিক সময় ধরে আইনী লড়াই লড়ে গেছে কাগজে কলমে নিজেকে জিন্দা প্রমান করার জন্য। কারন সম্পত্তির লোভে আত্মীয়রা তাকে মরা প্রমান করে বসে আছে।
এই যুগে এসে আপনি ২ জন সাক্ষী রেখে একাধিক বিয়ে করবেন এর মধ্যে একটা রেজিস্ট্রি করবেন একটা করবেন না তবে আপনার মৃত্যুর পর সম্পত্তির সঠিক ভাগ কি ২য় স্ত্রী পাবে? আদালতে গেলে তো বলবে কাবিননামা দেখাও। ইসলামে একাধিক বিয়ে জায়েজ তবে ইনসাফ করতে না পারলে ১টাই বিয়ে করতে হবে, তো এখানে ইনসাফ হলো?

একটা সময় মাইকে আজান দেয়ার বিপক্ষেও হুজুরেরা ফতোয়া দিয়েছিল।
কোর'আনের উপর ভিত্তি করে করা আইন এজ ইট ইজ মানলে প্লেনে চড়ে গেলে আপনার হজ্জ ও হবে না এবং একটা সময় এ নিয়েও হুজুররেরা ফতোয়াও দিয়েছিল।
একটা সময় ছবি তোলা নায়ায়েজ ছিল, এখন সেটা জায়েজ। বলা হয়েছিল দরকারে তোলা যাবে আর এখন হুজুর মাইন্ডেড মানুষ গুলোই তো ফেসবুকে সেল্ফির ঝড় তোলে!!
শায়েখ আহমদুল্লা হুজুরের মতে প্রিন্ট না করলে ছবি তোলা জায়েজ যেহেতু স্ক্রিনে ছবি আসলে ছবি না জাস্ট কিছু আলোর কনা!!
মানুষ চাঁদে যাওয়ার ঘটনার পর বাংলাদেশেরই এক এলাকায় হুজুর ফতয়া দিয়েছিলেন মানুষ পেটে গু নিয়ে চাঁদে গেছে, ফলে চাঁদ এখন অপবিত্র!! চাঁদ দেখে আর ইবাদত করা যাবে না!!

এভাবে হুজুর, যাজক বা পুরোহিতেরা নিজেরা নিজেদের খেয়াল খুশিমত ধর্ম শেখায়, তারা সেটাই এডপ্ট করে যেটা দিয়ে মানুষকে কন্ট্রোল করা যাবে।
২০১৩ সালে ব্লগার মানেই নাস্তিক ছিল আর এখন হুজুরেরা ইউটিউব ব্লগার! তাই এটা জায়েজ।

ধর্মগুরুরা যে নিজেদের খেয়াল খুশি মত আরো কতভাবে ইসলামকে টুইক করেছে তার হালকা পাতলা আইডিয়া পাবেন সজল রোশানের বই "রিলিজিয়াস মাইন্ডসেট" এ।
কেন কিভাবে আমরা কোর'আনের সহজ সরল পথ, বিশ্বাস ও সৎকর্মের নির্দেশ ভুলে মাসলা মাসায়েল নিয়ে পরে আছি সেটাও বুঝতে পারবেন।

➡বই নিয়ে বিতর্কঃ
বর্তমানে ধর্ম নিয়ে ২ লাইন বলবেন আর বিতর্ক হবে না এটা অসম্ভব। প্রত্যেক মত পথ ও মতবাদের একটা বিপরীত পক্ষ রয়েছে। নিউট্রাল বলতে কিছুই নেই। নিউট্রাল মানেই পক্ষ বিপক্ষ দুই পক্ষের কাছেই আপনি প্রতিপক্ষ।
লেখকের ইউটিউব চ্যানেল বা ফেসবুক পেইজে কমেন্ট সেকশনে অনেকেই তার বলা কথার বিরোধিতা করছে।
বই প্রকাশের ১ম সপ্তাহে রকমারীতে ১ নাম্বারে চলে আসলেও পরে রকমারী থেকে এই বই নামিয়ে ফেলা হয়েছে। রকমারী থেকে বক্তব্য দেয়া হয়েছে এই বইয়ে ইসলাম বিরোধী কথা বা ধর্মানুভুতিতে আঘাত লাগার মত কিছু বক্তব্য থাকার অভিযোগ রয়েছে।
রকমারী কুখ্যাত তসলিমা নাসরিন, সালমান রুশদীদের মত লেখকদের বই সেল করলেও এই বই নামিয়ে ফেলেছে। কেন?
কারন এই বইয়ে ধর্ম ব্যাবসায়ীদের মুখোশ খুলে দেয়া হয়েছে। তাদের অস্ত্র গুলোযে আসলে ভোঁতা এটা মানুষকে জানানো হয়েছে, সেটা আটকানোর একটা প্রচেস্টা। এ নিয়ে লেখক তার চ্যানেলে একটা রিবাটাল ও দিয়েছেন।

যাইহোক এখানে লেখক মুলত আমাদের ধর্ম মানার ক্ষেত্রে প্রায়োরিটি কি হওয়া উচিত, ধর্মগুরুদের মান্য কিভাবে করতে হবে ইত্যাদি নিয়ে আলোচনা করায় যথারীতি প্রশ্ন আসে তবে আমরা ইসলাম শিখব কিভাবে?
কোর'আন বোঝা তো সাধারন মানুষের পক্ষে সম্ভব না। এটা কঠিন, এটায় সব কিছু নেই
আমাদের এত সময় কই গবেষনা করার? জীবিকার তাগিদে ব্যাস্ত সবাই ইত্যাদি ইত্যাদি।

কোর'আন বোঝা সহজ না কঠিন এটা কোর'আনই বলছেঃ
সুরা ৫৪ঃ১৭,২২,৩২,৪০
"আর আমিতো কোর'আনকে সহজ করে দিয়েছি উপদেশ গ্রহনের জন্য। অতএব কোনো উপদেশ গ্রহনকারী আছে কি?"

সুরা নুরঃ৩৪
"আমি অবস্যই তোমার উপর সুস্পষ্ট আয়াত নাজিল করেছি। সুতরাং কোর'আনের অস্পস্টতার অভিযোগ অবান্তর এবং মিথ্যাচার"।

সুরা ফুসসিলাতঃ৩
এই কিতাবের প্রতিটা আয়াত বিষদ, বিস্তারিত"।

সুরা নাহলঃ ৮৯
" আমি তোমার উপর এই কিতাব নাজিল করেছি সকল বিষয়ের সুস্পষ্ট বিবরন এবং মুসলমানদের জন্য গাইডেন্স হিসেবে, ক্ষমা ও সুসংবাদ হিসেবে"।

আরো দ্রস্টব্য আল ইমরান আয়াত ৭। কোর'আনের মুতাশাবিহ আয়াত ছাড়া হুকুমের আয়াত গুলো বিশদ ও বিস্তারিত। মুতাশাবিহ আয়াতের ব্যাক্ষ্যা আল্লাহ ছাড়া কেহই জানে না।

কোর'আন বিশদ ও বিস্তারিত এটা আল্লাহ বার বার বলেছেন। কোর'আনের ব্যাখ্যা কোর'আনেই দেয়া আছে।
এখন আমি আপনি যদি বলি উল্টাটা, কাজ হবে?

ধর্মের ক্লিয়ার কাট শিক্ষা কোর'আনে ক্লিয়ারলি বলা আছে।
সৎ কাজ করো,
মিথ্যে পরিহার করো,
পিছে কথা বলো না,
খারাপ কাজ করো না,
ভালো কথা বলো,
উত্তম আচরন করো,
বিপদে ধৈর্য ধারন করো,
এক আল্লাহকে ভয় করো,
দান করো,
পিতামাতার খেদমত করো,
পিতামাতার সাথে ভালো ব্যাবহার করো,
এতিমদের সম্পদ ভক্ষন করো না,
ইত্যাদি ইত্যাদি।
এগুলো কি ধর্মের শিক্ষা না?
এগুলো বোঝা কঠিন?

এখন সব কিছু সেই ১৪০০ বছর আগের আদলে করতে গেলে তো সমস্যা।
ইমাম আবু হানিফা তাঁর সময়ে সামাজিক অবস্থা আর ব্যাবস্থার ভিত্তিতে লিখেছিলেন ফিকহুল আকবার যেটার একটা বড় অংশ বর্তমান সমাজ ব্যাবস্থার সাথে মিলবে না। না মিল্লে উপায়?
এবার ফতোয়া খোঁজো। আর ফতোয়াবাজেরা কখনো সহজ করে না। গুরু বিদ্যার সিস্টেমই এটা, সহজ করলে কেউই তাদের কাছে যাবে না। তাই জটিল করতেই হবে, যত বেশি প্যাঁচ তত বেশি মুরীদ।
ফতোয়ার সমস্যা হল এটার কোনো সেন্ট্রালাইজেসন নাই। মুফতি হলেই ফতোয়া দেয়া যায়, কি একটা অবস্থা!!

এখন পানি খাওয়া থেকে শুরু করে টয়লেটে কিভাবে কি করবেন, নখ কখন কাটবেন, গরু ছাগলে পেশাব পবিত্র কিনা, মসজিদে কুত্তা ঢুকলে কি করতে হবে, চুলের ছাট, কাপড়ের মাপ ইত্যাদি এ টু জেড সবই যদি ১৪০০ বছর আগের মত করতে চান এবং সেটাকেই ধর্ম মনে করেন তাহলে তো বিশাল সমস্যা।
হুজুরদের পিছে লেগেই থাকা লাগবে।
কোর'আন এসেছে জীবন সহজ করতে, হুজুরেরা করছে জটিল।

আপনি হুজুর, পীর, মাশায়েখ, আলেম, ওলামাদের কাছে যান সমস্যা কি? তারা ইসলামী জ্ঞ্যান রাখেন, তাদের থেকে শিখতে তো সমস্যা নেই।
কিন্তু সাবান দিয়ে হাত কিভাবে ধুবেন, মাস্ক কিভাবে পরবেন, ঔষধ কিভাবে খাবেন এগুলো বলবে ডাক্তার, এটা ডাক্তারের কাজ এটাও যদি হুজুর থেকে মাসালা খুজেন তো সমস্যা।

আর হুজুরের কাছে গেলেই হয়ে গেল?
কোন হুজুরের কাছে যাবেন?
তাহেরির কাছে গেলে আজাহারি বলবে হবে না।
আজাহারির কাছে গেলে আব্বাসি বলবে হবে না।
আব্বাসির কাছে গেলে মামুনুল বলবে হবে না।
মামুনুলের কাছে গেলে আব্দুর রাজ্জাক বলবে হবে না।
আব্দুর রাজ্জাকের কাছে গেলে মতিউর রহমান মাদানী বলবে হবে না।
মতিউর রহমানের কাছে গেলে তাহেরী বলবে হবে না।

তো কে সহীহ কে গলদ?
দিন শেষে মরলে নিজের হিসেব নিজেকেই দিতে হবে। হাসরের ময়দানে আজাহারি হুজুর এটা বলসে দেখে আমি এটা করি অজুহাত চলবে?
হুজুরদের থেকে শিখবেন একই সাথে কোর'আন পড়েও বুঝতে হবে হুজুর আসলেই ঠিক বলছে কিনা।

আর জীবনের তাহিদে বেশি ব্যাস্ত হলে শর্টকাট সিস্টেম তো আছেই। জ্বালাও পোড়াও এ গিয়ে মরলে বা নাস্তিক কতল করলেই কেল্লাফতে। ওদিকে ধর্ম গুরুরা তো পপিগাইড নিয়ে বসেই আছে। পপি গাইড পড়বেন, কোর'আন আলমারির উপরে সাজিয়ে রাখবেন হয়ে গেল কাজ।

➡রেটিংঃ
এই বইয়ে লিখা বেশ কিছু বিষয়ের সাথে আমি একমত নই। লেখক নিজেও একমত হতে বলেন নি। এখানে কিছু যৌক্তিক প্রশ্ন তোলা হয়েছে যেটার উত্তর নিজেকেই খুঁজতে হবে।
আমার বহু দিনের প্রশ্ন এবং তার উত্তর খুঁজে পাওয়ার রাস্তা আমি পেয়েছি এই বই থেকে, সেই পয়েন্ট থেকে ১০/১০ কিন্তু ১-২টা তথ্যের উপস্থাপনা আরো ভালো হতে পারত সেই বিবেচনায় কিছুটা মার্ক কাটা যাবে।
সব মিলিয়ে ৯/১০।

➡বই কোথায় পাবেন ঃ
durbiin.com এ পাবেন।
 

sadaq

Moderator
Staff member
Moderator
Uploader
Premium Member
Sep 16, 2013
661
11,208
বাংলাদেশ
sadaqurrahman.com
Credits
34,954
অনেকদিন পরে রিভিউ সেকশনে ঢুকে এই রিভিউটা দেখে বিশাল হওয়া সত্ত্বেও পড়ার লোভ সামলাতে পারলাম না। রকমারি থেকে বইটি যে সরিয়ে ফেলেছিল এমন ঘটনা শুনেছিলাম, তেমন কিছু জানতাম না বিস্তারিত।

আপনার সাহসের প্রশংসা করা লাগে এমন বইয়ের বিষয়ে রিভিউ লেখার জন্য। যদিও বইটা না পড়া পর্যন্ত একটা ব্যাপার বুঝতে পারছি না যে বইটা কি আক্রমনাত্মকভাবে লেখা নাকি। সাধারণত ধর্মীয় কুসংস্কারের বিরুদ্ধে লিখতে গিয়ে অনেকে কিছুটা আক্রমনাত্মক হয়ে পড়েন, যেটা আমার কাছে ব্যক্তিগতভাবে অপছন্দের।
তবে ধর্মকে পুজি করে অনেক ধরনের অপব্যাখ্যা এবং ভুল নিয়ম যে সমাজে প্রচলিত তা একটু ভেবে দেখলেই বোঝা যায়। সমস্যা হল সেসব নিয়ে কথা বলাও যায় না- "অমুক হুজুর এটা বলেছেন" তারমানে তার বাইরে আর কোন কথা হবে না! আরে হুজুর হলেই কি সব বিষয়ে এতই অভিজ্ঞ হয়ে যাওয়া যায়? তাও যদি তাদের সবাই পড়াশোনা বা গবেষণার ব্যাপারে একটু যত্নশীল হতেন। অধিকাংশই গলার জোরে তার মতবাদ প্রতিষ্ঠা করে ফেলতে চান।

কোরআন-হাদিস চর্চা সঠিকভাবে হলে এমনটা হত না।

আপনার রিভিউটি বইটি সম্পর্কে মোটামুটি ভালো একটা ধারনা দিতে পেরেছে, বিশেষ করে লেখাটা গোছানো হওয়ায় সুবিধা হয়েছে। আগামীতে আরো রিভিউ লিখবেন আশা করি।

একটা বিষয়ে একটু দ্বিমত প্রকাশ করছি-
Please, Log in or Register to view quote content!
রকমারিতে তসলিমা নাসরিনের লেখা কোন বই বিক্রি করেনা সম্ভবত, আমি খুজে পেলাম না কোনটা।
 
Last edited:

rickyrk

New Member
Sep 15, 2013
66
2,030
Chittagong
Credits
6,042
Please, Log in or Register to view quote content!
রাইট নাউ তসলিমা নাসরিনের বই নেই রকমারিতে তবে আপনি তসলিমা নাসরিন+রকমারি লিখে গুগল করলে আগে ইনডেক্স হওয়া পেইজ দেখতে পারবেন।
আমি বইয়ের কিছু স্ক্রিন শট দিতে চেয়েছিলাম পরে এডিট করে যেন ভিতরে আসলে কি লিখা আছে সেটা আরো ভালোভাবে বোঝা যায়। কি একটা এরর শো করেছিল, ২য়বার আর ট্রাই করা হয়নি।
বইয়ে আক্রমণ করে লিখা লিখা নাই। তবে অন্ধ আবেগ যারা রাখে তাদের গায়ে অবস্যই লাগতে পারে।
বইয়ে কোর'আনের আয়াতের সলিড রেফারেন্স দিয়ে বিভিন্ন বিষয় লিখা আছে।
কিছু বিষয় অবস্যই কন্ট্রোভার্শিয়াল এবং প্রথমবারে ভুয়া লাগতে পারে, আমার নিজেরও লেগ্বছিল, কিন্তু পরে আবারো পড়ে রেফারেন্স চেক করে দেখেছি ব্যাপারটি সঠিক।
যেমন সুরা ফীল এর আবাবিল পাখির আক্রমনে হস্তীবাহিনী মারা গেছে বলেই ম্যাক্সিমাম মানুষ জানি কিন্তু প্রসিদ্ধ তাফসির ও হিস্টোরিক্যাল এভিডেন্স অনুযায়ী আবরাহার সৈন্য মারা গেছে গুটি বসন্তে।

বিদায় হজ্জ্ব এর ভাষনে রাসুল (সাঃ) এর বিখ্যাত উক্তি "আমি তোমাদের জন্য ২টা জিনিস রেখে যাচ্ছি আল্লাহর কিতাব ও আমার সুন্নাহ, এ দুটো যতদিন তোমরা আঁকড়ে ধরবে ততদিন পথচ্যুত হবে না"
এই হাদীসের কোনো সলিড রেফারেন্সই নেই!
সহীহ মুসলিমে বলা আছে "১টা জিনিস রেখে যাচ্ছি আর তা হল আল্লাহর কিতাব"
 

Aziz112

Invisible Detective
Uploader
Premium Member
May 8, 2019
706
19,759
24
Mymensingh , Bangladesh
Credits
23,675
পুরো রিভিউটা মনোযোগ দিয়ে পড়লাম। বেশ গোছানো লেখা আপনার। আশা করব ভবিষ্যতে আরও বইয়ের রিভিউ লিখবেন। এত বিস্তারিত লেখা আমার পড়তেই কতটা সময় লেগেছে। আপনার লেখতে কতটা দীর্ঘসময় লেগেছে আন্দাজ করা যায়। একটা জিনিসে রিভিউটার সাথে আমি এরকম আর তা হলো এসব বই লেখলে সমালোচনা হবেই। মূলত ধর্মীয় ধাচের বই হলেই সেটা সমালোচনায় থাকবে(যেমন রকমারি বইটি সরিয়ে ফেলেছে)। যাই হোক এরকম সাবলীল রিভিউ আরও চাই আপনার কাছ থেকে।
 
  • Like
Reactions: safa abc

Aishu Rehman

The D. Alvarez
Uploader
Premium Member
Jul 23, 2018
401
3,227
Bangladesh
Credits
33,723
কি এক্টা রিভিউ লিখছেন ভাই!! বইটা পড়ে দেখার বেশ আগ্রহ হচ্ছে। সত্যি বলতে এরকম রিভিউ পড়লে বইয়ের প্রতি একটা আলাদা টান আসে আপনাআপনি। স্পর্শকাতর বিষয় নিয়ে লেখা বই সবসময় আলোচনার তুঙ্গে থাকে। আপনাকে অসংখ্য ধন্যবাদ, বইটি নিয়ে পর্যাপ্ত আলোচনা করার জন্য।
 
  • Like
Reactions: safa abc

কমেন্ট করার আগে নিম্মোক্ত বিষয়গুলো দেখে নিনঃ

  • বাংলিশ কমেন্ট করা যাবে না।
  • ক্রেডিট নিয়ে কোন কমেন্ট করা যাবে না।
  • মিডিয়াফায়ার কাজ না করলে VPN অথবা Tor ব্যাবহার করুন।
  • একই ধরনের রিপ্লাই বার বার করলে ব্যান হবার সম্ভাবনা আছে।
  • লিঙ্ক কাজ না করলে, কমেন্ট না করে আপলোডারকে ম্যাসেজ দিন।